বাংলাদেশ টাইম

প্রচ্ছদ» দেশের খবর »রৌমারীতে শোক দিবসে আ’লীগের মিষ্টি বিতরণ!
রৌমারীতে শোক দিবসে আ’লীগের মিষ্টি বিতরণ!

Monday, 15 August, 2016 09:25am  
A-
A+
রৌমারীতে শোক দিবসে আ’লীগের মিষ্টি বিতরণ!
কুড়িগ্রাম : স্কুল মার্কেট দখল করে রাতারাতি আ’লীগ অফিস বানিয়ে শোক দিবস পালন করতে পারায় মিষ্টি বিতরণ ও উল্লাস করেছেন রৌমারীর যাদুর চর ইউনিয়ন আ’লীগের নেতাকর্মীরা। 

রোববার রাতে যাদুরচর উচ্চ বিদ্যালয়ের মার্কেটের একটি কক্ষ অবৈধভাবে দখলের পর ভাড়াটিয়া দোকানদারের মালামালগুলোও গায়েব করা হয়। 

সোমবার বিকালে এমনই অভিযোগ করেছেন ওই মার্কেটের ভাড়াটিয়া সোহেল রানা। তিনি ওই মার্কেটে ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী বিক্রি করতেন। আর এ দখল অভিযানের পুরো নেতৃত্ব দেন আ’লীগের বহিস্কৃত নেতা রৌমারী উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান বঙ্গবাসি। বিষয়টি নিয়ে গোটা এলাকায় এখন সমালোচনার ঝড় বইছে। 

দোকানদার সোহেল রানা জানান, স্কুল মার্কেটের ১৫টি কক্ষের মধ্যে একটি কক্ষ দুই লাখ টাকা জামানতে ভাড়া নেন। প্রায় ৫দিন আগে উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান বঙ্গবাসি ওই দোকান সরিয়ে নিয়ে কক্ষটি খালি করতে বলেন। এতে অপারগতা প্রকাশ করলে রাতের অন্ধকারে মালামাল লুট করে কক্ষটি দখল করা হয়। শোক দিবসের দিন তিনি দেখতে পান ওই কক্ষটিতে আ’লীগের অফিস বানানো হয়েছে। শোক দিবস অনুষ্ঠানের শুরুতেই সেখানে উল্লাস  এবং মিষ্টি বিতরণ করছেন নেতাকর্মীরা।  

রৌমারী উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মিনু বলেন, বঙ্গবন্ধুর শাহাদতের দিন সারা দেশ যখন শোকে মুহ্যমান তখন এক শ্রেণীর আ’লীগের নাম ভাািঙ্গয়ে স্কুল মার্কেটের দোকানঘর দখল করে শোক দিবস পালনের নামে মিষ্টি বিতরণ করছেন। যতদ্রুত সম্ভব তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে রেবাবার (১৪ আগস্ট) শোক দিবসের অনুষ্ঠান পালন নিয়ে শাখওয়াত হোসেন সবুজ গ্রুপ ও মজিবুর রহমান বঙ্গবাসীর গ্রুপের মধ্যে দিনভর টান টান উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে খবর পেয়ে ওই দিন রাত পৌনে ১১টার দিকে  থানার ওসি এবিএম সাজেদুল ইসলাম ঘটনাস্থল যাদুরচর ইউনিয়নের কর্তিমারী বাজারে যান এবং আইনশৃঙ্খলা ভঙ্গ হয় এমন অপকর্ম থেকে উভয় পক্ষকেই বিরত থাকার অনুরোধ জানান। 

এক প্রশ্নের জবাবে আ’লীগের বহিস্কৃত নেতা ও উপজেলা চেয়ারাম্যান মুজিবুর রহমান বঙ্গবাসি বলেন, কক্ষটি স্কুলের নয়, ওটা আমার নিজস্ব কক্ষ। আমি তাদের ভাড়া দিয়েছিলাম সেটি আমি ফেরত নিয়েছি। তবে শোক দিবসে মিষ্টি বিতরণের বিষয়টি তিনি কৌশলে এড়িয়ে যান।

সাম্প্রতি অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান বঙ্গবাসি আ’লীগের পক্ষে ভোট না চেয়ে ভোট চান তার ভাই সতন্ত্র প্রার্থী আমিনুল ইসলাম বাবলুর পক্ষে। এ অভিযোগ প্রমানিত হলে ইউনিয়ন আ’লীগ থেকে তাকে এবং তার সঙ্গীয় ১০জনকে বহিস্কার করা হয়। এতেই দু’পক্ষের বিরোধটি প্রকাশ্য রূপ নেয়। 

রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্র্মকর্তা এবিএম সাজেদুল ইসলাম জানান, উত্তেজনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই এবং উভয় পক্ষকে শান্তি শৃঙখলা বজায় রাখার অনুরোধ করা হয়। তবে ঘর দখলের বিষয়ে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। 



 


এই ধরনের আরও পোস্ট -
   

আরও খবর

TOP