বাংলাদেশ টাইম

প্রচ্ছদ» দেশের খবর »খুলনা সিটিতে আজ ভোট: সমানে সমানে লড়াই
খুলনা সিটিতে আজ ভোট: সমানে সমানে লড়াই

Tuesday, 15 May, 2018 06:50am  
A-
A+
খুলনা সিটিতে আজ ভোট: সমানে সমানে লড়াই
সোমবার খুলনায় সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক ও বিএনপির নজরুল ইসলাম মঞ্জু- ছবিতে
বাংলাদেশ টাইম : আজ ১৫ মে মঙ্গলবার খুলনা সিটি করপোরেশনের (কেসিসি) পঞ্চম নির্বাচন। সিটি নির্বাচন নিয়ে অতীতে এমন আবেগ, উত্তেজনা, শঙ্কা কেউ কি লক্ষ্য করেছেন? তাৎক্ষণিক জবাব- নেতিবাচক হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। এই নির্বাচনে জয়-পরাজয় আগামী সংসদ নির্বাচনের ফলাফলের ইঙ্গিতবহ হতে পারে বলেই একে 'মরণপণ ভোটযুদ্ধ' মনে করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। ব্যক্তি নয় লড়াই প্রতীকে-প্রতীকে, নৌকা ও ধানের শীষে। তাই আজ শুধু খুলনা মহানগরীই নয়, গোটা দেশের কোটি কোটি মানুষ চেয়ে থাকবে খুলনার দিকে। 


ভোটাররা আজ নির্বাচন করবেন খুলনার নগরপিতা ও তার পরিষদ। তিন স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যেই সকাল ৮টা  থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে শেষ হবে বিকেল ৪টায়। সুষ্ঠু ভোট ব্যবস্থাপনা নিয়ে আশাবাদী নির্বাচন কমিশন। রিটার্নিং অফিসার ইউনুচ আলী সমকালকে বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশন বদ্ধপরিকর। কেউ কোথাও কোনো গোলযোগ সৃষ্টির চেষ্টা করলে সঙ্গে সঙ্গেই সেখানে ভোট গ্রহণ স্থগিত করে দেওয়া হবে। এই কর্মকর্তা জানান, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে এই নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে নয় হাজার সদস্য মোতায়েন রয়েছে। 


পর্যবেক্ষকরা বলছেন, এই নির্বাচনের শতকরা ৮০ দশমিক ৯৬ ভাগ কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ। সাধারণত কোনো নির্বাচনে এত বেশি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হয় না। বিএনপির শীর্ষ নেতারা অবশ্য বলছেন, সবগুলো ভোটকেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ। 


৪৫ দশমিক ৬৫ বর্গকিলোমিটারের খুলনা সিটিতে ভোটার ৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন। ৩১টি ওয়ার্ডে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন পাঁচজন, কাউন্সিলর পদে লড়ছেন ১৩৯ জন। আর সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলরের ১০টি পদে লড়ছেন আরও ৩৯ জন। কেসিসির সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৩ সালের ১৫ জুন। এদিকে গতকাল হাইকোর্ট সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে খুলনায় গণগ্রেফতার না করার নির্দেশ দিয়েছেন। 


গতকাল সোমবার দিনভর মেয়র প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ বাসায় দলের নেতাদের সঙ্গে শেষ মুহূর্তের কৌশল নির্ধারণ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেছেন। গণমাধ্যমে প্রতিদ্বন্দ্বী মেয়র প্রার্থীরা পাল্টাপাল্টি বক্তব্যও দেন। পুলিশ, সরকারি দল ও নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ তুলে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে সংশয় থাকলেও ভোটের মাঠে শেষ পর্যন্ত থাকার ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু। নগরীর কে ডি ঘোষ রোডের দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, 'আমি আপনাদের জানাতে চাই, এতকিছুর পরও আমার নেতাকর্মীরা এবং আমি মাঠে থাকব, নির্বাচনের ময়দানে থাকব।' তিনি অভিযোগ করেন, সরকার কেসিসিতে 'ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিং' করছে। পুলিশের নেতৃত্বে রাতেই ব্যালট পেপারে সিল মেরে বাক্স ভরার ষড়যন্ত্র চলছে বলেও প্রথাসিদ্ধ অভিযোগ করেন তিনি। 


তবে কেসিসি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক বলেছেন, 'সুষ্ঠু হবে কেসিসির নির্বাচন। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। তিনি আরও বলেন, জনতা চায় সন্ত্রাস ও জঙ্গিমুক্ত নির্বাচন। এবারের নির্বাচনে সে পরিবেশই সৃষ্টি হয়েছে। আওয়ামী লীগ ভোট ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে বিশ্বাস করে না, জনতার রায়ে বিশ্বাস করে।'


খুলনা সিটি করপোরেশনে এর আগের চারটি নির্বাচনে তিনবার বিএনপি ও একবার আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়েছিল। 


সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা : বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি-না তা নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে শঙ্কা রয়েছে। বিগত কয়েকদিনের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার শেষদিকে এসে প্রধান দুই মেয়র প্রার্থীর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ উত্তাপ ছড়ায় নির্বাচনের মাঠে। এ ছাড়া গত ২০ এপ্রিল থেকে পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করলেও তেমন কোনো সন্ত্রাসী গ্রেফতার হয়নি এবং উদ্ধার হয়নি অবৈধ অস্ত্র। ফলে সন্ত্রাসীরা নির্বাচনের কাজে ব্যবহার হবে কি-না তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে।


সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) খুলনার সম্পাদক অ্যাডভোকেট কুদরত ই খুদা বলেন, ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারবে কি-না এবং ভোট দিয়ে ঠিকমতো বাড়ি ফিরতে পারবে কি-না তা নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে এক ধরনের শঙ্কা রয়েছে। নির্বাচন কমিশন ভোটারদের মধ্যে সে আস্থা তৈরি করতে পারেনি।


খালেক-মঞ্জুর অভিযোগ : বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ইলেকশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পরিকল্পনা করা হয়েছে। রাতেই ব্যালট পেপারে সিল মেরে বাক্স ভরার ষড়যন্ত্র চলছে। সেই সঙ্গে রাত ১২টা থেকে বিএনপি অধ্যুষিত এলাকায় ব্লকরেইড চালানোর ষড়যন্ত্র করছে পুলিশ। 


পরে দলীয় কার্যালয়ে পাল্টা প্রেস ব্রিফিংয়ে তালুকদার আবদুল খালেক বলেন, নজরুল ইসলাম মঞ্জু গত নির্বাচনেও একই কথা বলেছেন। নির্বাচনের শুরু থেকেই তিনি বলতে থাকেন, নির্বাচন অবাধ হবে না, সুষ্ঠু হবে না, কারচুপি হবে। এরপর যখন জিতে যান তখন চুপ হয়ে যান। 


এদিকে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরুর ১২ ঘণ্টা আগে খুলনার নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে গিয়ে নজরুল ইসলাম মঞ্জু তিনটি অভিযোগ দিয়েছেন। সোমবার রাত ৮টার কিছু পর তিনি দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে খুলনার নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে যান। সেখানে নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মো. ইউনুচ আলীর কাছে তিনটি অভিযোগ দেন। অভিযোগ তিনটি হলো- এক. খুলনার বিভিন্ন হোটেলে বিপুলসংখ্যক বহিরাগত অবস্থান করছে। তারা ভোটের দিন সরকারি দলের পক্ষ হয়ে ভোট কারচুপি করতে পারে।

এর আগে নির্বাচন কমিশন ১২ মে রাতের মধ্যেই বহিরাগতদের খুলনা ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছিল। দুই. বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রের সামনে সরকারি দলের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক নির্বাচনী প্যান্ডেল করে আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন। তিন. খুলনার পুলিশ প্রশাসন হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে এখনও গ্রেফতার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। বিএনপির কর্মী ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের বাড়ির সামনে পুলিশ অবস্থান নিয়ে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। অভিযোগের জবাবে রিটার্নিং অফিসার ইউনুচ আলী তৎক্ষণাৎ পুলিশ কমিশনার এবং সোনাডাঙ্গা থানার ওসির সঙ্গ কথা বলেন। 


সব প্রস্তুতি সম্পন্ন : খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট গ্রহণের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নগরীর সোনাডাঙ্গা এলাকায় অবস্থিত বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স থেকে নির্বাচনের দিনই ঘোষণা করা হবে চূড়ান্ত ফলাফল। সেখান থেকে গতকাল সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে ২৮৯টি কেন্দ্রে পাঠানো হয় ব্যালট পেপার, ব্যালট বাক্স ও সিলসহ নির্বাচনী সরঞ্জাম। এর আগে সকাল ১০টায় সেখানে উপস্থিত হন প্রিসাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা। বেলা ৩টার মধ্যে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে যান ভোট গ্রহণ কর্মকর্তারা। বিকেলের মধ্যে সম্পন্ন হয় বুথ তৈরিসহ আনুষঙ্গিক কাজ। ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা রাতে ভোটকেন্দ্রেই অবস্থান করেন। 


খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) সোনালী সেন জানান, গুরুত্বপূর্ণ প্রতিটি কেন্দ্রে ২৪ জন এবং সাধারণ কেন্দ্রে ২২ জন করে পুলিশ ও আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করছে। আজ মঙ্গলবার নির্বাচনের দিন ভোটকেন্দ্রে ৩ হাজার ৪৩৭ জন পুলিশ, ৪ হাজার ৪৬ জন অঙ্গীভূত আনসার, ৮১৯ জন ব্যাটালিয়ন আনসার দায়িত্ব পালন করবেন। নগরীতে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের ৩০০ সদস্য, ১৬ প্লাটুন বিজিবি, পুলিশের ৭০টি মোবাইল টিম, আটটি মোটরসাইকেল টিম ও ১১টি স্ট্রাইকিং টিম দায়িত্ব পালন করবে। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে দেড় হাজার পুলিশ মোতায়েন থাকবে। এ ছাড়া র‌্যাব সদস্যরা নগরীতে টহল দেবে। সব মিলিয়ে আজ দায়িত্ব পালন করবে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় সাড়ে নয় হাজার সদস্য। তিনি বলেন, ভোটকেন্দ্রসহ নগরীজুড়ে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে।


দুপুরে নির্বাচনী সরঞ্জাম বিতরণের পর রিটার্নিং অফিসার মো. ইউনুচ আলী জানান, আশা করছি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন হবে। তিনি ভোটারদের নিরুদ্বেগভাবে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান।


রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে মোট ৩১ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ১০ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় ও খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে পৃথক দুটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।


দুটি কেন্দ্রে ইভিএম : রিটার্নিং অফিসার মো. ইউনুচ আলী জানান, নগরীর ২৪নং ওয়ার্ডের সোনাপোতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মহিলা ভোটকেন্দ্র্র ও ২৭নং ওয়ার্ডের পিটিআই কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। এর মধ্যে সোনাপোতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে চারটি বুথে ভোটার ১ হাজার ৯৯ জন মহিলা, পিটিআই কেন্দ্রের ছয়টি বুথে ১ হাজার ৮৭৯ জন পুরুষ ভোটার রয়েছেন।


মেয়র প্রার্থীরা কে কোথায় ভোট দেবেন : আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক সকাল ৮টায় নগরীর সাউথ সেন্ট্রাল রোডে পাইওনিয়ার মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেবেন। বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু সাড়ে ৮টায় ভোট দেবেন নগরীর মিয়াপাড়া এলাকার রহিমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে। জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী এসএম শফিকুর রহমান মুশফিক দেবেন খুলনা আলিয়া মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্রে, সিপিবির মেয়র প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবু শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ কেন্দ্রে। এ ছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মেয়র প্রার্থী মো. মুজ্জাম্মিল হক নগরীর রেভারেন্ড পলস হাই স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেবেন সকাল সাড়ে ৮টার মধ্যে।

এই ধরনের আরও পোস্ট -
   

আরও খবর

TOP