বাংলাদেশ টাইম

প্রচ্ছদ» অপরাধ »ভাইয়ের ঘরে ভাইয়ের আগুন
ভাইয়ের ঘরে ভাইয়ের আগুন

Saturday, 7 February, 2015 10:32  
A-
A+
ভাইয়ের ঘরে ভাইয়ের আগুন
বাংলাদেশ টাইমঃ   ঘুমন্ত ভাই, স্ত্রী ও সন্তানকে পুড়িয়ে মারতে বাইরে থেকে দরজা আটকে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়েছে পাষণ্ড ভাই। গাজীপুরের জয়দেবপুর পশ্চিম বুড়ুলিয়া গ্রামে বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

ভাই মনির হোসেন (৩৪), স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস এবং ছেলে মুরসালিন (৫) ও পাঁচ মাস বয়সী মেয়ে মরিয়ম এ সময় ওই ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। আগুনে স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস সামন্য দগ্ধ হলেও মনির হোসেনের শরীরের ২৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

মনির হোসেনকে প্রথমে গাজীপুর সদর হাসপাতাল এবং শুক্রবার দুপুরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পাষণ্ড ওই ভাই হলেন আক্তার হোসেন (৩৬)। তিনি গাজীপুর প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কাজ করেন। তার সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রশিবিরের সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে অভিযোগ করেন অপর দুই ভাই।

দগ্ধ ভাই মনির হোসেন বাংলাদেশ টোবাকো কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে গাজীপুরে কর্মরত ছিলেন। ভাই আক্তার হোসেনসহ তিনি জয়দেবপুর পশ্চিম বুড়ুলিয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে থাকতেন।

মনির ও আক্তারের অপর দুই ভাই মোহাম্মদ হোসেন ও ইকবাল হোসেন জানান, আক্তার হোসেন স্থানীয় ছাত্রশিবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ত। বিভিন্ন সহিংস কার্যক্রমে জড়িত থাকায় তাকে কয়েকবার সতর্ক করা হয়। সর্বশেষ তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ারও ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সে পালিয়ে যায়।

তারা আরও জানান, বাড়িতে থাকা মনির হোসেনের মাধ্যমে তারা তার সহিংস কর্মকাণ্ডের বিষয়ে জানতে পারেন। এ কারণে সে (আক্তার হোসেন) মনিরকে মেরে ফেলতে তার ঘরের দরজা বাইরে থেকে আটকে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয়।

মোহাম্মদ হোসেন ও ইকবাল হোসেন ঢাকায় কাজ করেন। কাজের সুবাদে তারা ঢাকাতেই অবস্থান করেন।

জমি নিয়ে বিরোধে আক্তার হোসেন আগুন দিয়েছে কিনা— এমন প্রশ্নের জবাবে দগ্ধ মনির হোসেন  জানান, জমিজমা নিয়ে আক্তারের সঙ্গে বাকি ভাইদের বিরোধ আছে। তবে সে জামায়াত-শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বিভিন্ন সহিংসতায় জড়িয়ে পড়ায় তাকে সতর্ক করা হয়। ৪-৫ দিন আগে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দেওয়ারও চেষ্টা করা হয়। কিন্তু সে পালিয়ে যায়।

ঢাকা মেডিকেলের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. লাবনী  জানান, মনির হোসেনের শরীরের ২৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এই ধরনের আরও পোস্ট -
   

আরও খবর

TOP