বাংলাদেশ টাইম

প্রচ্ছদ» মুক্তমত »কর নিয়ে ভাবনা...
কর নিয়ে ভাবনা...

Sunday, 29 July, 2018 04:05pm  
A-
A+
কর নিয়ে ভাবনা...

তারিকুল ইসলাম পলাশ
প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী
এইড ফাউন্ডেশন

সমাজকর্মী হিসেবে পদে পদে সমাজের অবক্ষয়ের আঁচ অনুভব করতে হয়। উন্নয়ন সংস্থার সকল কিছু সমাজ, পরিবেশ ও মানব কল্যাণে ব্যবহৃত হয়। অথচ তাদেরকেই লাভজনক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের ন্যায় সকল ধরনের কর প্রদান করতে হচ্ছে, সঙ্গত কারণে সেবাধর্মী উন্নয়ন সংগঠন ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শ্রেণী বিভাজন করা এখন দুরূহ।

উন্নয়ন সংগঠনগুলিকে নিবন্ধন কর্তৃপক্ষ ও দাতা সংস্থার নিয়ম-নীতি অনুসারে চলতে হয়, সঙ্গত কারণে তাদের সকল ক্ষেত্রে সুশাসন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা মূল পুঁজি। তারই ধারাবাহিকতায় সংস্থাসমূহ সরকারের সহযোগি হিসেবে রাজস্ব সংগ্রহে স্বতঃস্ফূর্তভাবে সহযোগিতা করে।

কর কর্তৃপক্ষ ঘুরে ফিরে সময়ে-অসময়ে তালিকাভুক্তির কারণে তারা কতটুকু কর ফাঁকি দিচ্ছে সেই মনিটরিংয়ে ভীষণ ব্যস্ত কিন্তু অনেকে দেদারসে ব্যবসা করে যাচ্ছে কিন্তু রহস্যজনকভাবে করের নথিতে অন্তর্ভুক্তি নেই । এমন হলে রাজস্বের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে কি করে?

মজার বিষয় করের আওতাভুক্ত সংস্থাসমূহের হিসাব সংক্রান্ত সামান্য ভুল বুঝাবুঝির খেসারত ব্যক্তিগতভাবে অনেক কর্মীকে দিতে হয়, হতে হয় লজ্জিত ও অপমানিত কিন্তু বিষয়টি প্রাতিষ্ঠানিক। উভয় পক্ষ তার প্রতিষ্ঠানের স্বার্থ দেখার জন্য নিয়োজিত কিন্তু সেটা যদি ব্যক্তিগত আক্রোশের কারণ হয়; তা দুঃখজনক।

ব্যক্তিগত কথা যখন উঠলো তখন বলি, বেতনে চলতে যারা অভ্যস্থ সেই বেতনের একমাসের সমপরিমান টাকা বছরে কর দিচ্ছি, থাকছে না কোনো সঞ্চয়, সঞ্চয় বলতে রাষ্ট্রের কাছে আমার করের অর্থ তার বিনিময়ে পাঁচটি মৌলিক দায়িত্ব পালনে রাষ্ট্র প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, যা আমার প্রাপ্য অধিকার! তার কতটুকু সেবা আমরা পাচ্ছি? মৌলিক অধিকারের কথা বাদই দিলাম। ন্যূনতম নাগরিক সুবিধাও তো নেই বরং মান সম্মান নিয়ে চলা দায়। ঘুমের মধ্যে অনেকের নাকি কর আতঙ্কে আচমকা ঘুম ভেঙ্গে রাতের ঘুম হয় হারাম! হায় রে হায় হায়! জনগণের সেবক হয়েছে প্রভু, চাকর হয়েছে মনিব, রথ চলেছে উল্টো পথে শান্তিপ্রিয় সাধারণ জনগণের কি করার আছে?


এই ধরনের আরও পোস্ট -
   

আরও খবর

TOP